আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কতটুকু হোস্টিং স্পেস প্রয়োজন? | Host The Website Blog

আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কতটুকু হোস্টিং স্পেস প্রয়োজন?

block_1-1024x561

আজকে আপনাদের সাথে খুব পরিচিত একটি বিষয় "হোস্টিং স্পেস" নিয়ে আলোচনা করব। আপনাদের প্রায় সবারই ওয়েবসাইট শুরু করার প্রথমেই কিছু প্রশ্ন থাকে, যেমন -

  • বাজেট কম, তাই ১ জিবি হোস্টিং স্পেসের মধ্যে সম্পূর্ণ ওয়েবসাইট কমপ্লিট করা যাবে কিনা?
  • শুরুতে কোন প্যাকেজটি নেওয়া ভাল হবে?

এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিতে একটু বর্ণনার প্রয়োজন হয়। কিন্তু আজ এই পোস্ট এ যতটা সম্ভব সহজভাবে জিনিসগুলোকে আশা করি আপনাদের বোঝাতে পারব।

প্রথমে যে বিষয়টি দেখতে হবে সেটা হলো ওয়েবসাইট এ কি ধরণের কনটেন্ট বা কি ধরণের ফাইল প্রকাশিত হবে। আমরা প্রথমে ব্লগ ওয়েবসাইট দিয়ে শুরু করি। সাধারণত একটি নতুন ব্লগ ওয়েবসাইটে বছরে প্রায় ৫০টির মত পোস্ট প্রকাশিত হতে পারে। ৫০টি পোস্ট আসলে শুনতে কম মনে হলেও, ৫০টি পোস্ট আসলে অনেক। তাহলে ব্লগে যদি ৫০টি পোস্ট হয়, ওয়েবসাইট এ মোট ৫০টি পেজ হবে। এছাড়া আপনার ওয়েবসাইট এ About Us Page, Contact Us Page সহ বেশ কিছু পোস্ট থাকতে পারে। আমরা ধরে নেই, ব্লগ ওয়েবসাইটটিতে মোট ৬০টি পেজ থাকবে। এখন আপনার দেখতে হবে প্রতি পেজে কতটুকু স্পেস দরকার। এটি হিসাব করার জন্য আপনাকে আগে ধরে নিতে হবে কি ধরণের গ্রাফিক্স আপনি প্রতি পোস্ট এ ব্যবহার করবেন। ধরুন আপনি একটি পোস্ট এ ৩টা করে ছবি ব্যবহার করছেন যে ছবিগুলোর প্রতিটা ২০০ কিলোবাইট করে সাইজ। ছবিগুলোর সাইজ বেশি হওয়া ঠিক না কারণ আপনারা অনেকেই হয়ত জানেন ওয়েবসাইট এ যদি বেশি সাইজের ছবি ব্যবহার করা হয় তবে তা ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পিড কমিয়ে দেয়। পরিসংখ্যান মতে, পৃথিবীর প্রায় ৮০% ভিজিটর এমন কোনো ওয়েবসাইট ভিজিট করে না যেসব ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পিড ৫ কেসেন্ডের এর বেশি হয়। টাই ওয়েবসাইট এর লোডিং স্পিড সবসময় ৫ সেকেন্ডের মধ্যেই রাখা উচিৎ। আপনি যদি প্রতি পেজের জন্য ৩টা ছবি ৩০০ কিলোবাইট করে ব্যবহার করেন তবে প্রতি পেজের জন্য মোট দরকার হচ্ছে ৬০০ কিলোবাইট। আমরা ধরে নেই যে সব মিলিয়ে প্রতি পেজের জন্য আমাদের প্রয়োজন হবে ২ মেগাবাইট। সুতরাং মোট পেজ সংখ্যা যদি ৬০টি হয়, তাহলে আপনার ওয়েবসাইট এর মোট স্পেস হবে ১২০ মেগাবাইট। এছাড়া আপনার ব্লগ যদি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে তৈরি করেন, তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস এর কিছু ফাইল থাকবে সেগুলো সাইজ হতে পারে প্রায় ১৫০ মেগাবাইট এর মত। তাহলে মোট হলো ২৭০ মেগাবাইট। এছাড়াও আরো কিছু যেমন লোগো, অ্যাড এবং সব মিলিয়ে ধরা যায় মোট স্পেস প্রয়োজন আসলে ৩৫০ মেগাবাইট। সুতরাং আমাদের ৫০টা পোস্ট সহ একটা ব্লগ ওয়েবসাইট এ মোট স্পেস দরকার হবে ৩৫০ মেগাবাইট এর মত।

আপনারা অনেকে সময় মনে করেন, বিশেষ করে ব্লগ ওয়েবসাইটে, যে ওয়েবসাইট এ তো অনেক পোস্ট হবে, আস্তে আস্তে হাজার পোস্ট দেওয়া হবে, তাই অনেকে একবারে আনলিমিটেড প্যাকেজটি নিয়ে শুরু করতে চান। কিন্তু এই কাজটা কিন্তু একদিনে হয়ে যাচ্ছে না। এমন না যে আপনাকে আজকেই বড় স্পেস নিয়ে শুরু করতে হবে। আপনি চাইলে পরে আপনার হোস্টিং স্পেস বাড়িতে নিতে পারেন। অনেকেই মনে করেন এটি এক ধরণের ঝামেলার কাজ, কিন্তু আসলে কোনো ঝামেলাই নয়। মোটামুটি সব হোস্টিং কম্পানিতেই একটি সিস্টেম থাকে, সেটি হলো প্যাকেজ আপগ্রেড করার সিস্টেম। যেমন আপনি এখন ১ গেগাবাইট প্যাকেজ ব্যবহার করছেন কিন্তু সেটা প্রায় শেষের পথে, তখন আপনি চাইলতে কিন্তু ২ গেগাবাইট এ আপগ্রেড করে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনাদের হোস্টিং কোম্পানির সাপোর্ট এ যোগাযোগ করতে হতে পারে। অন্যদিকে এমন নয় যে আপনাকে আবার পুরো পেমেন্ট করতে হবে আপগ্রেড করার জন্য। যেমন ধরেন আপনার ১ গেগাবাইট প্যাকেজের দাম ১২ ডলার প্রতি বছরের জন্য এবং ২ গেগাবাইটের জন্য দাম ২০ ডলার। তাহলে আপনি যখন প্যাকেজ পরিবর্তন করবেন তখন আপনাকে মোট পেমেন্ট করতে হবে ২০ - ১২ = ৮ ডলার। তাহলে আপনি এই গুরুত্বপূর্ণ সুবিধাটি যেকোনো সময়েই উপভোগ করতে পারবেন - হোস্টিং প্যাকেজ আপগ্রেড।

এখন চলে যাই একটি বিজনেজ ওয়েবসাইট এর কথায়। বিজনেজ ওয়েবসাইট এ আসলে কি কি থাকে? একটি বিজনেজ ওয়েবসাইট এ সাধারানত ৭ থেকে ১০ টা পেজ থাকতে পারে আপনার বিজনেজ এর বর্ণনা দেওয়ার জন্য। আবার ৩০টা পেজও থাকতে পারে। তাহলে আপনার আসলে কতটুকু স্পেস প্রয়োজন হবে তা সহজেই আগের নিয়মের মতই কাউন্ট করতে পারবেন। ধারণা মতে, একটা বিজনেজ ওয়েবসাইট ভাল ভাবেই ৩০০ মেগাবাইট এর মধ্যেই সম্পূর্ণ করা সম্ভব।

​এই ভিডিওটিতে বিস্তারিত দেখে নিতে পারেনঃ

এখন আসি ই-কমার্স ওয়েবসাইট এর কথায়। ই-কমার্স ওয়েবসাইট আসলে কি? এ ধরণের ওয়েবসাইট এ আসলে কি থাকে? ই-কমার্স ওয়েবসাইট এ যে জিনিসটা থাকে তা হলো - পোডাক্ট বা পণ্য। এ ধরণের ওয়েবসাইট এর হোস্টিং স্পেস কাউন্ট করার জন্য আপনার মনে রাখতে হবে আপনি কি ধরণের প্রোডাক্ট এবং কতগুলো প্রোডাক্ট ব্যবহার যুক্ত করবেন। ধরুন আপনার ওয়েবসাইট এ মোট ২৫০ টা প্রোডাক্ট থাকবে। ধারণা মতে, ২৫০টি প্রোডাক্ট এর জন্য ১ গেগাবাইট হোস্টিং স্পেস যথেষ্ট।

আপনারা এখন আশা করি হোস্টিং স্পেস কিভাবে হিসাব করতে হয় তা শিখে গিয়েছেন। সুতরাং আপনারা এখন নিজেই বুঝতে পারবেন আসলে আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য কোন প্যাকেজটি ভাল হবে। Host The Website এর ব্লগেই আমরা অন্য কোনো এক পোস্ট এ আপনাদের বলব ব্যান্ডউইথ কিভাবে হিসাব করতে হবে।

Host The Website এ আমাদের বিভিন্ন ধরণের প্যাকেজ রয়েছে। সব থেকে ছোট প্যাকেজটি হলো ১ গেগাবাইটের। এই প্যাকেজটির নাম - HTW Starter। এই হোস্টিং প্যাকেজে আমরা ১ গেগাবাইট হোস্টিং স্পেসের সাথে ১০ গেগাবাইট ব্যান্ডউইথ দিয়ে থাকি। আর সব থেকে আকর্ষণীয় বিষয়টি হলো - এই প্যাকেজে আপনি ২টি Addon Domain চালাতে পারবেন। Addon Domain টি আসলে কি? Addon Domain টি হলো - আপনি যখন হোস্টিং টি অর্ডার দিবেন, তখন আপনি আপনার Main Domain এর মাধ্যমে হোস্টিং অর্ডার দিবেন। আর আপনি Addon Domain Opton এর মাধ্যমে আপনার একই হোস্টিং প্যাকেজে একই সি-প্যানেলে আরো ২টি ডোমেইন হোস্ট করতে পারবেন। Beginner দের জন্য এটি অনেক বড় সুযোগ। একটি জিনিস খেয়াল করুন আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কিন্তু ৩০০ মেগাবাইটের বেশি স্পেস প্রয়োজন হচ্ছে না। তাহলে আপনি ১ গেগাবাইটেই মোট ৩টি ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারবেন। আপনি যদি আমাদের ঐ প্যাকেজ টা অর্ডার দেন, তাহলে আপনি মোট ৩টি ওয়েবসাইট হোস্ট করতে পারবেন। এছাড়াও আমাদের আরো অনেকগুলো প্যাকেজ রয়েছে। যারা মোটামুটি বড় প্ল্যান নিয়ে ওয়েবসাইট বানাবেন, তাদের জন্য আমাদের আরেকটি প্যাকেজ আছে সেটি হলো ২ গেগাবাইট হোস্টিং স্পেস এবং সাথে ৫টি Addon Domain। এছাড়াও আমাদের আনলিমিটেড প্যাকেজও রয়েছে। বিস্তারিত জানতে ওয়েবসাইট ভিজিট করুন এবং আমাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন।

About the Author সাজ্জাদ হোসেন অনীক

নিজের ইচ্ছা এবং প্রচেষ্টায় ২০১২ থেকে ওয়েবসাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ শুরু করি। ওয়েবসাইট সার্ভার এবং সিপ্যানেল নিয়ে কাজ করা ছিল আমার অন্যতম প্যাশনের জায়গা বলা চলে। নিজের প্যাশনের উপর ভিত্তি করে ২০১৫ তে শুরু করি হোস্ট দ্যা ওয়েবসাইট। বিগত দুইবছরে আমাদের টীম আজ ১১ জনে। বাংলাদেশে একটি রিলাইয়েবল হোস্টিং কোম্পানি দ্বারা করাতে কাজ করে যাচ্ছি অনবরত। আমাদের উদ্দ্যেশ্য বাস্তবায়নে আপনাদের সকলের কাছে দোয়াপ্রার্থী।

Leave a Comment:

To Know Our Latest offers , Subscribe Us.

x